English

ভোলায় অসামাকি কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় নারীসহ গণধোলাই !

৩১ জুলাই ২০১৭, ১৭:৩৫

ভোলা প্রতিনিধি।

ভোলার বাংলাস্কুর মোড়ের হাসান বুক হাউজের মালিক কামালকে সদ্যতালাক প্রাপ্তা এক নারীর সাথে অসামাকি কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় আটক করে গণধোলাই দেয়া হয়েছে। রবিবার রাত ১০টার দিকে বাপ্তা লাশকাটা ঘর এলাকার একটি ঘর থেকে ওই নারীসহ কামালকে আটক করা হয়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।
স্থানীয় সুত্র জানায়, পরকীয়ার জের ধরে জাহাঙ্গির লাইব্রেরির মালিকের ছেলে জাহিদ শনিবার তার স্ত্রীকে তালাক দেয়। পরদিন রবিবার রাতে ওই নারীর সাথে পুস্তক ব্যবসায়ী কামাল উদ্দিনকে গুচ্ছগ্রামের একটি ঘর থেকে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় স্থানীয় যুবকরা আটক করে বেদম মারধর করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গত কয়েক মাস ধরে সময়ে অসময়ে কামাল ওই মেয়ের বাড়িতে যাতায়াত করছিল। প্রায় দিনই গভীর রাত পর্যন্ত কামাল উদ্দিন ওই ঘরে অবস্থান করত। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে কানাঘুষা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এলাকার যুবকরা পাহারা দিচ্ছিল। রবিবার রাতে হাতে নাতে ধরার পর কামালকে বেদম মারধর করা হয়।
এদিকে কামাল উদ্দিুনের স্বজনরা জানায়, কামাল উদ্দিনের সাথে তার আপন চাচা জাহাঙ্গির লাইব্রেরি মালিকের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। গত কয়েক মাস আগে জাহাঙ্গির লাইব্রেরির মালিকের ছেলে জাহিদের স্ত্রী স্বামীর ঘর করবে না বলে বাবার বাড়ি চলে যায়। এক পর্যায়ে কামাল উদ্দিন চেষ্টা তদ্বির করে বিচার শালিশের মাধ্যমে সমস্যটি মিটানের চেস্টা করে।কিন্ত তাতেও  সমাধান  না হওয়ায় জাহিদের কাছ থেকে তাকে ছাড়ানোর ব্যবস্থা করে। এ জন্য জাহাঙ্গির লাইব্রেরির মালিক পক্ষ কামালের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এই মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে বলেও জানান তারা।
ভোলা থানার ওসি মীর খায়রুল কবির জানান, অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে পুস্তক ব্যবসায়ী কামাল উদ্দিনকে এলাকাবাসী মারধর করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধারের পর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সর্বাধিক ক্লিক